চিকিৎসকের ভুলে স্তন হারালেন নারী!

Sharing

অন্যকন্ঠ,ঢাকা: টিস্যুর নমুনা অদলবদল হয়ে যাওয়ার জেরে ভুল মহিলার ডান স্তন কেটে বাদ দিলেন চিকিত্সকরা! মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে জাপানের ‘চিবা ক্যানসার সেন্টার’ হাসপাতালে।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবশ্য ঘটনার দায় স্বীকার করে অন্তবর্তী তদন্ত কমিশন গঠনের নির্দেশ দিয়েছে, এবং ওই মহিলাকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যাপারেও ভাবনাচিন্তা করছে।

যে মহিলার অঙ্গ বাদ গেছে, তার বয়স তিরিশের কোঠায়, এবং তার প্রাথমিক পর্যায়ের ক্যান্সার ছিল। অর্থাত্, ওই অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন তার ছিল না! হাসপাতাল সূত্রের খবর, গত অক্টোবরের মাঝামাঝি একই দিনে হাসপাতালের ‘চুয়ো ওয়ার্ডে’ তার এবং অপর এক মহিলার স্তন থেকে সূচের সাহায্যে (নিড্ল বায়োপসি) টিস্যুর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। অপর মহিলার বয়স ছিল ষাটের কোটায়, এবং তার ক্ষেত্রেই স্তন ক্যান্সারের চিকিত্সায় অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন ছিল। কিন্ত্ত তাঁদের নমুনা অদলবদল হয়ে যাওয়ার জেরে চিকিত্সকরা প্রথম জনকেই অস্ত্রোপচারের ‘দরকার’ সম্বন্ধে জানান। কিন্ত্ত অস্ত্রোপচারের পর বাদ দেওয়া অঙ্গটি পরীক্ষা করে চিকিত্সকরা দেখেন, তাতে শুধুমাত্র প্রাথমিক পর্যায়ের ক্যান্সারের উপস্থিতি রয়েছে। ফের ওই দুই মহিলার টিস্যু পরীক্ষা করতেই ভুলটা স্পষ্ট হয়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, টিস্যুর নমুনা সংগ্রহ করেন এক চিকিত্সক। একজন নার্স সেটি পাত্রে ভরে রোগির নামের লেবেল সাঁটেন। তারপর সেটি প্যাথলজিক্যাল বিভাগে যায়। সেখানে এক ক্লিনিক্যাল প্রযুক্তিবিদ সেগুলি ‘স্টেইন’ করেন। তারপর এক প্যাথোলজিস্ট সেটি পরীক্ষা করেন। এই গোটা প্রক্রিয়ার কোনও একটি অংশে ‘ভুল’ হয়েছিল। সাংবাদিক বৈঠকে হাসপাতালের ডিরেক্টর মাতসুয়ো নাগাতা বলেন, ‘আমরা স্বীকার করছি, হাসপাতালে সংস্কার চলাকালীন এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ভবিষ্যতে এর পুনরাবৃত্তি আটকাতে আমরা আরও কড়া ভাবে কাজ পরীক্ষা করার ব্যবস্থা চালু করব। সূত্র : এই সময়

Sharing