আজকের তরুণ আগামী দিনের কর্ণধার

Sharing

আজকের তরুণ আগামী দিনে হবে এ দেশের কর্ণধার বলে উল্লেখ করে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের সব আয়োজন এই তারুণ্যের জন্য।
তরুণরা তাদের ভাগ্য পরিবর্তন করবে। তাদের সুন্দর একটা ভবিষ্যৎ যেন গড়ে তোলা
যায়, সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশব্যাপী
‘৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা-২০১৮’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

উন্নয়ন মেলার মাধ্যমে জনগণ নিজেদের ভাগ্য গড়ার সুযোগ পাবে বলে জানিয়ে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে জনগণ তাদের
জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে পারবে। জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনই আওয়ামী লীগ
সরকারের একমাত্র লক্ষ্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি উন্নয়ন মেলা তরুণদের জন্য উৎসর্গ করছি। তরুণরা
উন্নয়নের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও মাদক দমন করে দেশকে যেন এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে
সেটাই আমাদের লক্ষ্য।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ছেলেমেয়েদের শিক্ষার ব্যাপারে আমরা সর্বোচ্চ
গুরুত্ব দিচ্ছি। উন্নত শিক্ষা গ্রহণ করে তারা যেন দেশে ও বিদেশে সুনাম
অর্জন করতে পারে আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। মেধাবী শিক্ষার্থীদের
লেখাপড়ার যেন কোনও সমস্যা না হয় সেজন্য আমরা ভাতার ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, ডিজিটাল যুগে কেউ পিছিয়ে থাকুক সেটা আমরা চাই না। এসএসসি
পরীক্ষার্থীরা বাংলা, ইংরেজি ও গণিত এই তিন বিষয়ে অনলাইনে যেন শিক্ষা পায়
আমরা সেই ব্যবস্থা করে দিচ্ছি।

মাতৃত্বকালীন ভাতা, বিধবা ও বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী শিশুদের ভাতার
ব্যবস্থা করা হয়েছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের লক্ষ্য
দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এই ধারা যেন
অব্যাহত থাকে।

Sharing